জেলা ট্রাক, ট্রাক্টর,কাভার্ডভ্যান, ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়নের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

স্টাফ রিপোর্টার॥ সাতক্ষীরা জেলা ট্রাক, ট্রাক্টর,কাভার্ডভ্যান, ট্যাংকলরী(দাহ্য পদার্থ বহনকারী ব্যতীত) শ্রমিক ইউনিয়ন রেজি: নং- খুলনা১২৭৫ এর নির্বাচন সংক্রান্ত এক মতবিনিময় সভা গত ১৭ অক্টোবর বেলা সাড়ে ৩ টায় সংগঠনের কার্যালয়ে সাবেক নেতৃবৃন্দ, শ্রমিক প্রতিনিধিবৃন্দ ও সিনিয়র সদস্যদের সমন্বয়ে সংগঠনের সভাপতি মোঃ আজিজুল হক আজিজ এর সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক শাহাঙ্গীর হোসেন শাহীনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়।
মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাবেক সাধারন সম্পাদক আবুল কালাম, মো: আব্দুল আজিজ, সাবেক সহসভাপতি আনছার আলী, সাবেক সভাপতি মো: হাফিজুল ইসলাম, শ্রমিক রবিউল ইসলাম, শাহাদাত হোসেন, মোহাম্মদ আলী, মফিজুল ইসলাম, আয়ুব আলী, কেসমত প্রমুখ।
মতবিনিময়ে স্বাগত বক্তব্যে সংগঠনের সাধারন সম্পাদক শাহাঙ্গীর হোসেন শাহীন বলেন, ইউনিয়নের উন্নয়ন কার্যক্রম অব্যাহত রাখায় আপনারা আমাকে ৩ বার সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত করেছেন। গত ৯/৯/২০১৭ তে নির্বাচিত হয়ে আসার পরে সংগঠনের অনেক উন্নয়ন মূলক কাজ করেছি যা দৃশ্যমান। গত বছরের ২০ অক্টোবর সরকারের উচ্ছেদ অভিযানে ইটাগাছাস্থ আমাদের সংগঠনের অফিস উচ্ছেদের আওতায় আসে। এর পরে নতুন ভবন নির্মানসহ লকডাউনে থাকা ২৯৬৫ জন শ্রমিককে ধারাবাহিক ৭ দিন ত্রাণ সামগ্রী বিতরণসহ সংগঠনের শ্রমিকদের বিভিন্ন সময়ে চিকিৎসা ভাতা, বেকার ভাতা, উৎসব ভাতা, আহত শ্রমিকদের এককালিন চিকিৎসা অনুদান, মরোনত্তর ভাতা প্রদান করে এসেছি। সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ বাইপাস সড়কের কাছে ১২ শতক নিষ্কন্ঠক জমির বায়না স্বরুপ ১৮ লাখ ১১ হাজার ৯’শ টাকা পরিশোধ করি।
চলতি বছরের ২৫ মার্চ লকডাউন হওয়াতে সংগঠনের আয়ের উৎস বন্ধ হয়ে যায়। ধার দেনার পরে শ্রমিক ভবনের নির্মান কাজ চলে। যার ফলে সংগঠন ঋণি হয়ে আছে। এ অবস্থায় আগামী নির্বাচন কিভাবে সম্পন্ন হবে উপস্থিত সকলের কাছে মতামত চেয়ে বক্তব্য শেষ করেন।
শ্রমিকদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন মোহাম্মদ আলী তিনি প্রস্তাব জানান, যেহেতু সংগঠনের পুরাতন ভবন উচ্ছেদ অভিযানে বিলিন হয়, সেজন্য নতুন শ্রমিক ভবন নির্মানে সংগঠন বর্তমানে আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ ও ঋণি । সব কিছু বিবেচনা করে ৮ লক্ষাধিক টাকা ঋণ থাকায় সাধারন শ্রমিকদের পক্ষ থেকে বর্তমান কার্যনিবাহী কমিটি আগামী পহেলা মে ২০২১ পর্যন্ত সময় বৃদ্ধি করার প্রস্তাব রাখেন।
এদিকে সংগঠনের সাবেক সভাপতি মোঃ হাফিজুর রহমান বলেন, সংগঠনের কল্যান তহবিলের চাঁদা দীর্ঘ দিন করোনার কারনে বন্ধ থাকায় আগামী সাত মাস এই অল্প সময় ঋণসহ অন্যান্য সকল দিক সম্পূর্ণ করে সাধারন সভা দেওয়া কষ্টকর অনেক ক্ষেত্রে অসম্ভব তাই অল্প সময় না দিয়ে আগামী এক বছর বর্তমান কমিটির কাছে দায়িত্ব রাখার প্রস্তাব করেন। এসময় সংগঠনের সাধারন সম্পাদক উভয় এর প্রস্তাব গ্রহণ করেন এবং সভাপতি প্রস্তাবটি অনুমোদনের জন্য উপস্থিত সকল সদস্যদের মতামতের জন্য কন্ঠ ভোটের জন্য উন্মুক্ত করে দেন। এসময় উপস্থিত সাবেক নেতৃবৃন্দের প্রস্তাব ও সাধারন শ্রমিকদের করতালির মাধ্যমে সর্বসম্মতিক্রমে প্রস্তাবটি গৃহীত হয়।

Related posts

Leave a Comment