জেলা পরিষদ নির্বাচন নজরুল ইসলামের মনোনয়ন বাতিলের দাবি প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী খলিলুল্লাহ ঝড়ুর

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ সাতক্ষীরা জেলা পরিষদ নির্বাচনে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করেছেন সাতক্ষীরা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক হুমায়ুন কবীর। কিন্তু ঋণখেলাপীর অভিযোগে জেলা পরিষদের প্রশাসক আলহাজ্ব মোঃ নজরুল ইসলামের মনোনয়ন বাতিল করার জন্য রিটার্নিং অফিসার বরাবর আবেদন করেছেন অপর প্রার্থী আলহাজ্ব মোঃ খলিলউল্লাহ ঝড়ু।

জেলা পরিষদ নির্বাচনে অপর চেয়ারম্যান প্রাথী আলহাজ্ব মোঃ খলিলউল্লাহ ঝড়ু তার লিখিত আবেদনে জানান, বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক ঋণখেলাপী প্রতিষ্ঠান Beach Hatchery limited এর Sponsor Director হিসাবে ঋণখেলাপী যা বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের টেকনাফ শাখার সাথে সংশ্লিষ্ট। জেলা পরিষদ আইন ৬(২)(ঝ) ধারা মোতাবেক নজরুল ইসলাম নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার অশিধ্য ব্যক্তি।’
তিনি আবেদনে আরও উল্লেখ করেন, ‘নজরুল ইসলাম মহামান্য সুপ্রিম কোর্ট হাইকোর্ট বিভাগে ঋণখেলাপীর জন্য ২টি রিট পিটিশান আবেদন করেছিলেন, যথাক্রমে ১৪০০৭/২০১৬ যা গত ২৭/০৭/২০১৭ তারিখে এবং রিট পিটিশান নং ১২১৫৫/২০১৭ গত ১৪/১০/২০১৯ তারিখে খারিজ হয়ে যায়। এছাড়াও ২৮/১২/২০১৬ তারিখে জেল পরিষদ নির্বাচনে নজরুল ইসলামের বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক সি,আইবি রিপোর্টে ঋণ খেলাপী থাকে সে ক্ষেত্রে যাচাই বাছাইয়ে মননোয়ন বাতিল না হওয়ায় মোঃ রফিকুল ইসলাম হাইকোর্টে একটি রীট পিটিশান আবেদন করেন, যার নং২৪৮৪/২০১৭ যা এখনো চলমান আছে।’
আলহাজ্ব মোঃ খলিলউল্লাহ আবেদনে আরও উল্লেখ করেন, যাচাই বাছাই ক্ষেত্রে মোঃ নজরুল ইসলামের মননোয়ন ফর্মের শর্ত সমূহের সাথে হলফনামায় আয়কর রিটার্ন ও সার্টিফিকেট দাখিল করার শর্ত থাকলেও তিনি সেটি করেননি।’ প্রজ্ঞাপন ১৪(৩)(ঙ) হলফনামা অসম্পূর্ন তথ্য সংক্রান্ত বিষয়ে তিনি আপত্তি জানিয়েছেন।
মননোয়ন বাতিলের আবেদন প্রসঙ্গে, সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের বর্তমান প্রশাসক, জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ নজরুল ইসলাম জানান, সব কিছু যাচাই বাছাই করেই রিটার্নিং অফিসার আমার মননোয়ন বৈধ বলে ঘোষণা করেছেন। আবেদনের বিষয়টি সংশ্লিষ্ট দপ্তর দেখবে।

Related posts

Leave a Comment