মিথ্যা সংবাদ ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে সাতক্ষীরার সাপ্তাহিক মুক্ত স্বাধীন পত্রিকার সম্পাদকের বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা

ডেস্ক রিপোর্টঃ তথ্যপ্রযুক্তি আইনে সাতক্ষীরার সাপ্তাহিক মুক্ত স্বাধীন পত্রিকার সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। বুধবার (২৫ নভেম্বর) সদর থানায় এ মামলাটি দায়ের করেন সাংবাদিক মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জল। মামলায় পত্রিকাটির সম্পাদক আবুল কালামসহ অজ্ঞাত আরো ৫-৬ জনকে আসামি করা হয়েছে। মামলার নং-৬০। ধারা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন (২০১৮) এর ২৫(২) /২৮(২)/ ২৯(১)/ ৩১(২)।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, গত ১৫ নভেম্বর ২০২০ তারিখে সাতক্ষীরা থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক মুক্ত স্বাধীন পত্রিকার অনলাইন ভার্সন (ওয়েবসাইট) এবং পত্রিকার সম্পাদক মোঃ আবুল কালামের নিজ নামীয় ফেসবুক একাউন্টে “ ব্যাপক লুটপাট, দূর্নীতি ও অনিয়মের ফাঁদে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান সাতক্ষীরা আহছানিয়া মিশন” শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে। উক্ত সংবাদের ভিতরে উল্লেখ করা হয়েছে যে, ইসলাম ও পবিত্র কুরআন হাদিস সম্পর্কে যার বিন্দুমাত্র জ্ঞান গর্ভতা নেই তিনি কিভাবে একটি প্রতিষ্ঠানের সাধারন সম্পাদক হতে পারে এটা ভাবিয়া তুলিয়াছে এলাকাবাসী ও মুসল্লিদের। মুসল্লিরা প্রশ্ন তুলে বলে, যে ব্যক্তিকে ৫ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করতে নিয়মিত দেখা যায়না তিনি কি করে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের মসজিদের সাধারন সম্পাদক হয়। তিনি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের নির্বাহি প্রধান হওয়ার যোগ্যতা রাখেনা। এমনটাই জানান যারা ইসলাম সম্পর্কে নিয়মিত চর্চা করেন। এভাবে আক্রমনাতœক মিথ্যা ও মানহানিকর তথ্য উপাত্ত সম্বলিত সংবাদ ইচ্ছাকৃতভাবে প্রকাশ ও প্রচার করিয়াছে। যার প্রেক্ষিতে এ মামলার বাদী ও বর্তমান সাতক্ষীরা আহছানিয়া মিশনের কার্যকরী কমিটির সদস্যদের ও ধর্মপ্রানমুসল্লিদের ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাত হানিয়েছে। মামলায় তিনি আরো উল্লেখ করেন, উক্ত সংবাদ প্রচারের মাধ্যমে এলাকার ধর্মপ্রান মুসল্লি সম্প্রদায় ও প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বিশৃংখলা সৃষ্টি হইয়াছে এবং এলাকার আইন শৃংখলার অবনতি ঘটিবার উপক্রম হইয়াছে। সংবাদে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, “উজ¦ল সরকারী কর্মকর্তাদের সাথে সখ্যতা তৈরী করে দালালি ও তাবেদারির মাধ্যমে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে তোলে। সে নির্বাহি ক্ষমতার দাপটে দূর্নিতীর আখড়ায় পরিণত করেছে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানকে”। এহেন মানহানিকর, মিথ্যা ও উদ্দেশ্য প্রনোদিত তথ্য উপাত্ত প্রচার করিয়াছে পত্রিকাটির সম্পাদক। যার প্রেক্ষিতে এ মামলার বাদীসহ (উজ¦লসহ) প্রতিষ্ঠানের মানহানি হইয়াছে এবং দেশব্যাপী দীর্ঘদিন ধরিয়া সুনামের সহিত পরিচালিত আহছানিয়া মিশনের সুনাম সুখ্যাতি নষ্ট হইবার উপক্রম হইয়াছে। এছাড়া এহেন মিথ্যা সংবাদ পরিবেশনের ফলে প্রতিষ্ঠানের সদস্যদের মধ্যেও পরস্পর শত্রæতামূলক আচরন ও অস্থিরতা বিরাজ করছে। মামলার বাদী মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জল এজাহারে আরো উল্লেখ করেছেন, তিনি সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, সাতক্ষীরা আহ্্ছানিয়া মিশনের সাধারণ সম্পাদক, রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির আজীবন সদস্যসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত রয়েছেন। এ ধরণের মিথ্যা, উস্কানিমুলক, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত মানহানিকর সংবাদ প্রকাশ ও সোস্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেয়ায় তিনি সামাজিক, পারিবারিক ও পেশাগতভাবে মারাতœকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।
সাতক্ষীরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আসাদুজ্জামান মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আসামিদের গ্রেপ্তারে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

Related posts

Leave a Comment