সাতক্ষীরায় বাচ্চাদের খেলা করার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দফায় দফায় মারপিট করে টাকা ও স্বর্নালংকার লুট

স্টাফ রিপোর্টারঃ সাতক্ষীরা সদরের মৃগীডাঙ্গায় বাচ্চাদের খেলা করার ঘটনাকে কেন্দ্র মারপিট করে টাকা ও স্বর্নালংকার লুট করার ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার ১৩ অক্টোবর বিকাল থেকে দফায় দফায় এ ঘটনা ঘটেছে।

এঘটনায় ভুক্তভোগী মৃগীডাঙ্গা পূর্বপাড়া এলাকার গোলাম সরোয়ারের স্ত্রী মোছাঃ মমতাজ বেগম (৪০) সাতক্ষীরা সদর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছে।
অভিযোগ সূত্রে, একই এলাকার মৃত আবুল সরদারের ছেলে মোঃ হাসান সরদার (৩৫), তার স্ত্রী মোছাঃ সেলিনা বেগম (৩০) ও হাসান সরদারের মা মোছাঃ মনিরা খাতুন @ মনি (৫২) এর সাথে মৎস্য ঘেরের বিষয় নিয়ে বিরোধসহ শত্রুতা চলছে ভুক্তভোগী পরিবারের।
অভিযোগে ভুক্তভোগী জনান, সর্বশেষ বাচ্চাদের খেলা করার বিষয়কে কেন্দ্র করে গত বৃহস্পতিবার ১৩ অক্টোবর বিকাল অনুমানিক সাড়ে ৪টার দিকে আমরা বাড়ীতে না থাকার সুযোগে আসামীরা আমার বসত বাড়ীতে ঢুকে আমার পুত্র সাব্বির হোসেন (১৪)কে এলোপাতাড়ি মারপিট করে তার শরীরের জখম করে। তারা ঘরে থাকা টিনের বাক্সের মধ্যে রাখা ১ ভরি ওজনের একটি স্বর্ণের চেইন ৪ আনা ওজনের এক জোড়া স্বর্ণের কানের দুল নিয়ে নেয়। এ সময় আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে তারা আমার বাড়ী থেকে চলে যায়।
একই সময় আমার স্বামী আড়ুয়াখালী গ্রাম থেকে গরু কেনার টাকা নিয়ে বাড়ী ফেরার পথে পতিপক্ষের বাড়ীর সামনে আসতেই তারা আমার স্বামীকে রাস্তা বন্ধ করে এলোপাতাড়ি মারপিট শুরু করে। এ সময় হাসান সরদার আমার স্বামীকে এলোপাতাড়ি কিল ঘুষি মারে আমার স্বামীর কাছে থাকা গরু ব্যবসার নগদ ৯০ হাজার টাকা কেড়ে নেয়। আমার স্বামীর ডাক চিৎকারে আশপাশের লোকজন আসলে তারা আমার স্বামীকে ছেড়ে দিয়ে তাদের বাড়ীর ভিতরে চলে যায়। এর কিছুক্ষন পরে বাউকোলা এলাকায় আমার ভাসুর শফিকুল ইসলাম এর বাড়ী থেকে আমার বাড়ী ফেরার উদ্দেশ্যে ভ্যানে মৃর্গীডাঙ্গা বাজারে তিন রাস্তার মোড়ে এসে আমি ভ্যান ভাড়া দেওয়ার সময় হাসান সরদার আমাকে আচমকা এলোপাতাড়ি মারপিট শুরু করে। সে আমাকে এলোপাতাড়ি কিল ঘুষি ও চড় থাপ্পর মারে। আমার চুল টেনে ছিড়ে ফেলে। এসময় সে রাস্তার পাশের একটি ইট হাতে নিয়ে ইট দিয়ে আমাকে এলোপাতাড়ি আঘাত করে আমার শরীরের বিভিন্ন স্থানে রক্ত জমাট ফোলা জখম করে। তারা আমার পরনের কাপড় টানে ছিড়ে শীলতাহানী করে। বাজারের লোকজন এগিয়ে আসলে সে আমাকে খুন জখম করার হুমকি দিয়ে চলে যায়।
এঘটনায় ভুক্তভোগী পরিবার জেলা পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট সকলের আশু হস্থক্ষেপ কামনা করেছেন।

Related posts

Leave a Comment